লুটপাট জনগণের টাকা বিএনপি-জামাত শাসনের বৈশিষ্ট্য : জয়

Please Share

জনগণের টাকা লুটপাট, অসম্পূর্ণ নির্মাণ কাজ এবং ইশতেহারে দেয়া অপূর্ণ প্রতিশ্রুতি ২০০১ থেকে ২০০৬ বিএনপি-জামায়াত সরকারের বৈশিষ্ট্য বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

সজীব ওয়াজেদ জয় তার ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ‘বাংলাদেশের পিছিয়ে যাওয়ার ৫ বছর, সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সবকিছু ছিল হাওয়া ভবনের দখলে’ শিরোনামের এক পোস্টে এসব কথা বলেন।

ফেসবুক পোস্টে জয় লিখেছেন, ২০০১ থেকে ২০০৬ সালের মধ্যে বিএনপি-জামাতের শাসনামলে সব নির্মাণ প্রকল্প যেমন রাস্তা, ব্রিজ, কালভার্ট, সরকারি ভবনের সব কাজ থেকেছে অসম্পূর্ণ – কাজের নামে হয়েছে হরিলুট আর ভাগাভাগি।

পোস্টে একটি ভিডিও যোগ করে তিনি বলেন, এই ভিডিওটির মাধ্যমে আমি দেখানোর চেষ্টা করেছি যে হাওয়া ভবন কিভাবে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সমস্ত সরকারি প্রকল্প বিতরণ করত এবং কিভাবে তারেকের ঘনিষ্ঠ সহযোগীরা দুর্নীতির মাধ্যমে রাতারাতি কিভাবে অঢেল অর্থের মালিক হয়েছিল।

কথাগুলো শুনবেন সাধারণ মানুষের মুখেই, যারা ওই সময় বিএনপি জামাতের এই সিন্ডিকেট বাণিজ্যের ভুক্তভোগী ছিল।

 

ভিউজ্যুয়ালটির সংবাদ প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বিএনপি-জামায়াত জোটের নির্বাচনী ইশতেহারে ১০০টিরও বেশি সুনির্দিষ্ট প্রতিশ্রুতির মধ্যে মাত্র কয়েকটি বাস্তবতার মুখ দেখেছে।

২০০১-২০০৬ মেয়াদকে ‘বাংলাদেশের পিছিয়ে যাওয়ার পাঁচ বছর’ হিসেবে উল্লেখ করে, সজীব ওয়াজেদ জয় সেই সময়ের কিছু গুরুতর সমস্যার কথা উল্লেখ করেছেন, যার মধ্যে রয়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের অত্যধিক মূল্য, ব্যাপক বিদ্যুৎ বিভ্রাট এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি।

তিনি তার দাবির সপক্ষে প্রমাণ হিসেবে, সাথে থাকা ভিডিওতে অসম্পূর্ণ সেতুর ছবি এবং সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দুর্নীতি যাচাইকারী ঠিকাদারদের সাক্ষাৎকার দেখানো হয়েছে।

সজীব ওয়াজেদ জয় তার পোস্টের শেষে লিখেন, আমাদের ফেসবুক পেজে, আমি পর্যায়ক্রমে, বিএনপি-জামাত জোটের দুঃশাসন সম্পর্কে তথ্য এবং পরিসংখ্যান জানাব। অনুগ্রহ করে আমাদের পেজে আপনার চোখ রাখুন। মন্তব্য বক্সে আপনার মতামত শেয়ার করতে মিস করবেন না।